আবার আসবে শুভদিন নৌকা মার্কায় ভোট দিন

423

বাংলাদেশ:পূণ্যভূমি সিলেট দিয়ে নির্বাচনী প্রচার শুরু করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তুলে ধরছেন তাঁর সরকারের করা উন্নয়ন কর্মকাণ্ড। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার পরামর্শ দিলেন। সবশেষে ভোট চাইলেন নৌকা মার্কায়। জনসভায় তিনি বলেন, ‘দুই হাত তুলে ওয়াদা করেন যে নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন।’sheikh-hasina-1

মঙ্গলবার সিলেটে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে আয়োজিত জনসভায় বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রায় ৪০ মিনিটের ওই বক্তব্যে তুলে ধরেন তাঁর সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড।
বাংলাদেশ হাত পেতে চলবে না
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ হাত পেতে চলবে না। বাংলাদেশ বিশ্বসভায় মাথা উঁচু করে চলবে। বাংলাদেশ উন্নত হবে, সমৃদ্ধশালী হবে। বাংলাদেশের মানুষ দেশে ও বিদেশে সম্মানের সঙ্গে এগিয়ে যাবে। সেটাই আমাদের লক্ষ্য। আর এ লক্ষ্য পূরণ করতে হলে আগামী নির্বাচন, যে নির্বাচন আগামী ডিসেম্বর মাসে হবে সে নির্বাচনেও আমরা আপনাদের কাছে নৌকা মার্কায় ভোট চাই। নৌকা স্বাধীনতা এনে দিয়েছে, নৌকা সমৃদ্ধির পথ দেখিয়েছে, নৌকা উন্নয়নের পথে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আপনারা ওয়াদা করেন, দুই হাত তুলে ওয়াদা করেন যে নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০১৪ সালে আওয়ামী লীগ যদি পুনরায় ক্ষমতায় না আসত এত উন্নতি হতো না। উন্নয়নের ছোঁয়া আপনারা পেতেন না। কারণ লুটেরা আসলে লুটপাট করে খেত আর সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ চালাত। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে বলেই, দেশের উন্নয়ন হয়েছে। তাই আপনাদের কাছে আমার আহ্বান, আপনারা অতীতেও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েছেন, এই নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বাংলাদেশের মানুষ স্বাধীনতা পেয়েছে। এ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েই আজ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে, সম্মান পেয়েছে।’

‘জঙ্গিবাদ ইসলাম ধর্মবিরোধী’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘কথা দিয়েছিলাম যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করব, আমরা সে বিচার করেছি। জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার আমরা করেছি। এদেশে কোনো অন্যায়, অবিচারকে আমরা বরদাশত করব না। কোনো জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসের স্থান বাংলার মাটিতে হবে না।’ ছেলেদের ওপর নজর রাখার জন্য অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সরকারপ্রধান বলেন, ‘মানুষকে সচেতন করুন। জঙ্গিবাদ ইসলাম ধর্মবিরোধী। ইসলাম জঙ্গিবাদকে কখনো প্রশ্রয় দেয় না। সন্ত্রাসকে প্রশ্রয় দেয় না। ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলামের নাম নিয়ে যারা নিরীহ মানুষ হত্যা করে তারা কখনো বেহেসতে যাবে না।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘আমরা ভিক্ষা করে চলতে চাই না। আমরা কারও কাছে হাত পাততে চাই না। মাথা উঁচু করে বিশ্ব দরবারে চলতে চাই। আওয়ামী লীগের চিন্তা চেতনা আর ওদের চিন্তা চেতনায় তফাতটা আপনারাই বুঝতে পারেন। যারা এতিমের টাকা মেরে খায় যারা জনগণকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারে, যারা দেশকে ধ্বংস করতে জানে, দেশকে পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করে তারা কীভাবে একটা দেশের উন্নয়ন করবে?’

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.