চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিনটা লিটন-মুশফিকের

227

প্রথমদিনের খেলা শেষ হতে বাকি ছিল আরও ৫ ওভার। তার আগে আলোকস্বল্পতার কারণে স্টাম্পের সিদ্ধান্ত নিলেন আম্পায়ার।

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস প্যাভিলিয়নে ফিরলেন মাথা উঁচু করে। বাহবা পেলেন পাকিস্তানিদের কাছ থেকেও। কী দুর্দান্তভাবে বাংলাদেশকে রক্ষা করলেন এই দুই ডানহাতি ব্যাটার! ৪৯ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলা টাইগাররা মুশফিক-লিটনের ব্যাটে ভর করে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন পার করল আড়ইশ’ পেরোনো স্কোর নিয়ে।

লিটন দিনের শেষটাও করলেন দারুণভাবে। ইনিংস শেষের আগের বলে শাহীন আফ্রিদিকে অফসাইড দিয়ে চার। অথচ বোঝায় যাচ্ছিল, সারা দিন ব্যাটিং করে আর টানছে না শরীর। ব্যথায় একটু ন্যুব্জও হলেন লিটন। কিন্তু সন্ধ্যার ম্লান আলোতেও দেখা যাচ্ছিল ২৭ বছর বয়সী এই তারকার উজ্জ্বল চোখ।

কিন্তু লিটনের জন্য আনন্দের যে, আলোকস্বল্পতার কারণে আর তাকে আর ব্যাট করতে হয়নি। শরীরে ক্লান্তি থাকলেও রাতটা চাপবিহীন কাটাতে পারবেন তিনি। কেননা সারা দিনে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে পাকিস্তানি বোলারদের যে দারুণভাবে শাসন করেছে লিটনের ব্যাট!

টেস্ট ক্যারিয়ারের ৪৩তম ইনিংসে এসে পেলেন প্রথম সেঞ্চুরি। কী দারুণ জবাবই না দিলেন লিটন! দলের দুঃসময়ে খেললেন ২২৫ বলে অপরাজিত ১১১ রানের ইনিংস। যেখানে ১১ চারের পাশাপাশি রয়েছে এক ছয়।

অন্যদিকে টেস্টে অষ্টম সেঞ্চুরির অপেক্ষায় থাকলেন মুশফিক। ২৪তম টেস্ট ফিফটি পাওয়া মুশি ১৯০ বলে ১০ চারে অপরাজিত আছেন ৮২ রানে।

৮৫ ওভারে ৪ উইকেটে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে ২৫৩ রানের সংগ্রহে মুশফিক-লিটনের জুটি ৪১৩ বলে ২০৪। অথচ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তাদের ব্যাট না হাসায় একের পর এক সমালোচনা সইতে হয়েছিল। বাদ পড়েছিলেন পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকেও। তবে টেস্টে ফিরতেই হাসল মুশফিক-লিটনের ব্যাট।

শুক্রবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের বিপক্ষে দুই সিরিজের প্রথম টেস্টে টস জিতে ব্যাটিংয়ের শুরুতে দুই ওপেনার সাইফ হাসান ও সাদমান ইসলাম ফেরেন ব্যক্তিগত ১৪ রান নিয়ে।

এরপর নাজমুল হোসেন শান্তও কাটা পড়েন ১৪ রানের ইনিংস খেলে। দলের দুঃসময়ে বেশিক্ষণ টিকেননি অধিনায়ক মুমিনুল হক (৬)। সেখান থেকে মুশফিক-লিটনের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়িয়ে স্বস্তিতে দিন পার করল বাংলাদেশ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.