জাতিসংঘের সামনে আওয়ামীলীগ-বিএনপির মুখোমুখি সংঘর্ষ

480

সাবেদ সাথী, নিউইয়র্ক: জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষনের আগে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে উভয় দলের নেতাকর্মিদের মাঝে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে চার টার দিকে জা্তিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে এ ঘটনা ঘটে। জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারFB_IMG_1506052624700

কেন্দ্র করে পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী দুপুর থেকেই জা্তিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে জড়ো হতে শুরু করেন আওয়ামীলীগ ও বিএনপির নেতাকর্মিরা। পুলিশের ব্যারিকেডের একপাশে বিএনপি এবং অপর আওয়ামীলীগের নেতাকর্মিরা অবস্থান নেয়। যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে আসা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মিরা বিক্ষোভ সমাবেশে শেখ হাসিনা ও বর্তমান সরকার বিরোধী বিভিন্ন শ্লোগান দিতে শুরু করেন। অপর দিকে আওয়ামীগের নেতাকর্মিরা পূর্বঘোষিত কর্মসূচি মোতাবেক বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ প্রতিহতের ডাক দেন। শান্তিপূর্ণ সমাবেশের শেষ পর্যায়ে বিএনপির আপত্তিকর শ্লোগানে উত্তেজিত হয়ে পড়েন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মিরা। এক পর্যায়ে মুখোমুখি হয়ে পড়েন উভয় দল। পানির বোতল ও জুতা দিয়ে ঢিল ও পাল্টা ঢিল নিক্ষেপ শুরু হয়।পরে আইন শৃংখলা বাহিনীর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। তবে এ খবর লেখা পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তারের খবর পাওয়া যায়নি।FB_IMG_1506042132092
একই সময়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে পাশাপাশি অবস্থান নিলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সফরসঙ্গী মন্ত্রী ও সরকারি কর্মকর্তারা এ সময় সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জাতিসংঘের ভেতর অবস্থান করছিলেন। বেশ কিছু প্রবাসীকে পর্যবেক্ষক হিসেবে সম্মেলন কেন্দ্রে অবস্থান নিতে দেখা যায়। জাতিসংঘ সদর দপ্তর সংলগ্ন এলাকায় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের কয়েক শত নেতা-কর্মির সমাগম ঘটে। তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে ‘স্বৈরাচার’ ও ‘গণবিরোধী’ বলে স্লোগান দিতে থাকেন।
এদিকে, বিএনপির বিক্ষোভের মুখে আওয়ামী লীগের লোকজনের উপস্থিতি ছিল খুবই কম। দলীয় কোন্দল থাকলেও প্রচুর সংখ্যক বিএনপির নেতাকর্মিরা সমাবেশে উপস্থিত হন। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে আওয়ামী লীগের আরও কিছু নেতা-কর্মী বিক্ষোভরত এলাকায় জড়ো হন। তবে তাঁদের প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে দেওয়া স্লোগান বিএনপির ব্যাপক স্লোগানের মুখে চাপা পড়ে যায়। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনির্বাচিত ও অবৈধ প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করে বিএনপি নেতারা শেখ হাসিনাকে অবাঞ্চিত ঘোষনা করেন। বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি নেতারা বলেন, গত ৫ জানুয়ারি অগণতান্ত্রিক ও প্রহসনের নির্বাচনে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর দাবিদার শেখ হাসিনার ভাষণ দেওয়ার কোনই অধিকার নেই। কারণ তিনি জনগণের ভোটে নির্বাচিত হননি। যুক্তরাষ্ট্রের যেখানেই হাসিনা সেখানেই প্রতিরোধ আন্দোলন সর্বাত্মক ভাবেই সফল হয়েছে বলে জানান বিএনপি নেতারা। তাঁরা বলেন, দেশের সাধারন মানুষকে খুন গুম আর ভয়াবহ আতংকের মধ্যে রেখে জাতিসংঘে এসে শান্তির কথা বলে বিশ্ববাসীর কাছে মিথ্যাচার করছে শেখ হাসিনা। বক্তারা বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার অনির্বাচিত ও অগণতান্ত্রিক সরকার। তাঁরা দেশের বিরোধী দলের নেতাকর্মিদের উপর জেল-জুলুমসহ হত্যার রাজনীতি করছে। এ বিক্ষোভ সমাবেশে অবিলম্বে শেখ হাসিনার পদত্যাগ ও তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানান নেতারা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.