নিউইয়র্কে যুবলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, গ্রেফতার ৩,প্রবাসে দেশের ভাবমূর্তি প্রশ্নের মুখে; নিন্দার ঝড়

211

নিউইয়র্ক প্রতিনিধিঃপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুক্তরাষ্ট্রে আগমন  উপলক্ষ্যে নিউ ইয়র্কে যুবলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সময় গতকাল রাত ১০টার দিকে সিটির জ্যাকসন হাইটস এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির আহবায়ক তারিকুল হায়দার চৌধুরী, যুগ্ম আহবায়ক জামাল হোসেন এবং সেবুল মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।Jubo-Ny-1
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুক্তরাষ্ট্রে সফর উপলক্ষ্যে গতকাল রাতে জ্যাকসন হাইটসে যুবলীগের একটি গ্রুপ মিছিল বের করে  জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে  অপর আরেকটি গ্রুপের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে । পুলিশ খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে এসে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে । এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তারা মুক্তি পায়নি বলে জানা যায় । এ ঘটনার স্থানীয় আওয়ামীলীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের দরজা ভাংচুরের ঘটনাও  ঘটেছে।  আহতাবস্থায় হাসপাতালে ভর্তির কোন খবর জানেন না স্থানীয় পুলিশ।
প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, আগামি  ২৩ সেপ্টেম্বর জননেত্রী শেখ হাসিনার আগমনের সময় বিমানবন্দরে বড় ধরনের শো-ডাউন ও ২৭ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণদানের সময় বাইরে বড় ধরনের একটি সমাবেশের সমর্থনে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের একটি মিছিল জ্যাকসন হাইটস এলাকায় অপর একটি গ্রুপ(তারেককে) ধাক্কা দিলে সংঘর্ষ শুরু হয়। আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের ভেতর থেকে মিছিল কারিদের( জামাল-সেবুল) হামলা প্রতিহত করার চেস্টা করে  তারেক গ্রুপ। এ সময় ৪ জন আহত হবার খবর পাওয়া গেছে।
উল্লেখ্য, তিন বছর আগে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের কমিটি ভেঙে দিয়ে তারিকুল হায়দার চৌধুরীকে আহবায়ক করে ৬০ দিনের মধ্যে সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। আজ অবধি সম্মেলন হয়নি এবং কার্যকরী কমিটি গঠনের কোন উদ্যোগও নেয়া হয়নি। এ নিয়ে নেতা-কর্মীরা ক্ষুব্ধ এবং পাল্টা কর্মসূচি পালন করছেন জামাল-সেবুলের নেতৃত্বাধীন যুবলীগ। যুবলীগের তারিকুল গ্রুপের নেপথ্যে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের মদদ রয়েছে বলে অনেকেই উল্লেখ করেছেন।এদিকে প্রবাসে দেশের ভাবমূর্তি প্রশ্নের মুখে উল্লেখকরে আলম নামে এক প্রবাসী আমাদের প্রতিনিধিকে বলেন,  আমেরিকার মতো সুপার পাওয়ার, উন্নত, সভ্য ও  আইনের শাসনের দেশে যারা এ সব ভয়াবহ সন্ত্রাস হামলা ভাংচুর করেছে , তারা  বাংলাদেশের জেএমবি বা আল কায়েদার চেয়েও ভয়ংকর টেরর তাতে কোন সন্দেহ নেই ! এরা আমেরিকায় আইন শৃংখলা রক্ষা কারী বাহিনীর কাছে বাংলাদেশীদের কলঙ্কিত করলো ! ভিডিও দেখে এক এক করে প্রত্যেককে ধরে আমেরিকা হতে ডিপোর্ট করা হৌক ! মাস্তানী করবি তো দেশে গিয়ে কর,মারামারি করো।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.