ফের ৩০০ কোটি টাকার নিচে ডিএসইর লেনদেন

1,032

Dhaka Stock Exchange

ফের দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৩০০ কোটি টাকার নিচে লেনদেন হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ২৮৬ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। এর আগে সর্বশেষ লেনদেন দিবস মঙ্গলবার লেনদেন হয়েছিল ৩২৪ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। এ হিসাবে মঙ্গলবারের তুলনায় লেনদেন কমেছে ৩৮ কোটি ৮ লাখ টাকা। লেনদেন কমার এ হার ১১.৭৩ শতাংশ।

এর আগে চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসেও ৩০০ কোটি টাকার কম লেনদেন হয়েছিল। ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ২৭৪ কোটি ১৬ লাখ টাকা।

এদিকে দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন সামান্য বেড়েছে। মঙ্গলবার ২১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা লেনদেন হলেও বৃহস্পতিবার তা বেড়ে হয়েছে ২১ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

অপরদিকে টানা ৭ দিন দরপতনের পর মূল্য সূচকের সামান্য উত্থানে শেষ হয়েছে ডিএসইর লেনদেন। তবে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে পতন অব্যাহত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ৬.৯০ পয়েন্ট। দিনশেষে সূচক দাঁড়িয়েছে ৪৫২০.৮৭ পয়েন্টে। মঙ্গলবার সূচক কমেছিল ১৯.৯৩ পয়েন্ট।

লেনদেনে অংশ নেওয়া ৩১৯টি ইস্যুর মধ্যে দিনশেষে দর বেড়েছে ১৪০টির, কমেছে ১৩১টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৮টির দর।

লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে বেক্সিমকো ফার্মা। দিনশেষে কোম্পানিটির ১৯ কোটি ২৬ লাখ ৯৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা কাশেম ড্রাইসেলের লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি ৭৮ লাখ ৯৭ হাজার টাকা। ১১ কোটি ২৯ লাখ ৬১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে স্কয়ার ফার্মা।

লেনদেনে এরপর রয়েছে যথাক্রমে— লাফার্জ সুরমা, রিজেন্ট টেক্সটাইল, সাইফ পাওয়ারটেক, বিএসআরএম স্টিল, আফতাব অটোমোবাইলস, কেডিএস এক্সেসরিজ, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স।

দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সিএসসিএক্স ৫.৯৩ পয়েন্ট কমে দিনশেষে ৮৪০০.৭১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হয়েছে ২১ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেওয়া কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৮টির, কমেছে ১১৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টির দর।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.