বাংলাদেশি দর্শনার্থীদের ভিড়ে মুখরিত যুক্তরাষ্ট্রের হিন্দুসম্প্রদায়ের দুই শতাধিক পূজামন্ডপ

156

নিউজবিডি ইউএসদেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রে দুর্গাপূজার অনুষ্ঠান কোনো গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ে সীমাবদ্ধতা পেরিয়ে এতে সব ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষই শামিল হচ্ছে। এটি সত্যিই সর্বজনীন উৎসবে রূপ নিয়েছে। বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে শুরু হওয়া সনাতন ধর্মা্লম্বীদের সর্ববৃহৎ উৎসব দুর্গাপূজা রুপ নেয় সার্বজনীন উৎসবে।

Durga Puja-01

গত রবিবার যুক্তরাষ্ট্রে ছিলো মহা অষ্টমীতে  ‘কুমারীপূজা’। সকাল থেকেই ছিল গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। প্রাণের সেই উৎসবে যোগ দিতে বৃষ্টি মাথায় নিয়েই ভক্ত-পূজারিরা দলে দলে ছুটে আসেন পূজামণ্ডপের দিকে। শঙ্খের ধ্বনি, কাঁসর ঘণ্টা, ঢাকের বাদ্য ও উলু ধ্বনির মধ্য দিয়ে গতকাল রবিবার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের স্থায়ী ও অস্থায়ী মন্দিরে কুমারীপূজা উদ্যাপিত হয়েছে।
মাতৃভাবে কুমারী কন্যাকে জীবন্ত প্রতিমা করে তাতে জগজ্জননীর উদ্দেশে শ্রদ্ধা নিবেদন করাই কুমারীপূজা। আজ সোমবার শারদীয় দুর্গোৎসবের মহানবমীতে ষোড়শ উপাচারের সঙ্গে ১০৮টি নীলপদ্মে পূজিত হবেন দেবী  দুর্গা। হিন্দু ধর্মগুরুদের মতে, নবমী পূজায় যজ্ঞের মাধ্যমে দেবী দুর্গার কাছে নিজেকে আহুতি দেওয়া হয়। ১০৮টি বেল পাতা, আম কাঠ, ঘি দিয়ে এই যজ্ঞ করা হয়। ধর্মের গ্লানি আর অধর্ম রোধ, সাধুদের রক্ষা, অসুরের বধ আর ধর্ম প্রতিষ্ঠার জন্য প্রতিবছর দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গা ভক্তদের মধ্যে আবির্ভূত হন। শুভ বিজয়ার মাধ্যমে জাগতিক প্রাণীকে শোনান সাম্য ও ভ্রাতৃত্বের বাণী। সনাতন ধর্ম মতে, নবমী পূজার মাধ্যমে মানবকুলে সম্পদ লাভ হয়।
নিউ ইয়র্কে ১২ টি মন্দিরসহ যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি হিন্দু সম্প্রদায় পরিচালিত প্রায় দুই শতাধিক মন্দিরে এবারে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। রবিবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্কের জ্যাকসন হাইটস,  উডসাইড, ব্রঙ্কস, জামাইকা, ব্রুকলিনের বেশ কয়েকটি পূজা মন্ডপে ছিল উপচে পড়া দর্শনার্থী। এসব মন্ডপে পূজা অর্চনার পাশাপাশি রাতভর চলে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.