মন্ত্রী হয়েও পরিবহন সংগঠনের নেতৃত্বে কেন?নৌমন্ত্রীকে লিগ্যাল নোটিশ

185

বাংলাদেশ:নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান কোন ক্ষমতা বলে মন্ত্রী পদে থেকে এবং বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন ও শ্রমিক ফেডারেশনে কার্যকরী সভাপতি রয়েছেন তার ব্যাখ্যা চেয়ে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন এক আইনজীবী।BF9F181D-8401-4CAB-92C3-47494751B9C3
বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) রেজিস্ট্রি ও ডাকযোগে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. একলাছ উদ্দিন ভূঁইয়া এ নোটিশটি পাঠান। নোটিশে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মন্ত্রীকে জবাব দিতে বলা হয়েছে।
নোটিশে বলা হয়, আপনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধানের তৃতীয় তফসিলের ১৪৮ ধারা মতে ২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারি নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে শপথগ্রহণ করেছেন। সংবিধান সংরক্ষণ, সব নাগরিকের প্রতি সমান আচরণ ও রাগ-অনুরাগ বিরাগের বশবর্তী হয়ে কোনো কাজ করবেন না বলে শপথ গ্রহণ করেছেন। অথচ শ্রমিক সংগঠন একটি বিশেষ শ্রেণি পেশার প্রতিনিধিত্ব করে। যা একটি কালেকটিভ বার্গেলিং এজেন্ট (সিবিএ) এবং শুধু শ্রমিকদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে কাজ করে। সেখানে রাষ্ট্রের একজন মন্ত্রী হয়েও আপনি সিবিএ এর কার্যকরী সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন যা অসাংবিধানিক।
নোটিশে আরও বলা হয়, শ্রমিক যদি কোনো সমস্যা বা অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকে তবে, ব্যবস্থা নেবে শ্রমিক ইউনিয়ন ফেডারেশন। আপনি একজন মন্ত্রী হিসেবে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়ে সাংবিধানিক এবং নৈতিকভাবে প্রশ্নবিদ্ধ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.