রাজশাহী-৩ সংসদীয় আসনে নয়া মেরুকরণ আসাদুজ্জামান আসাদ

175

রাজশাহী অফিস  : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) সংসদীয় আসনের নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদকে ঘিরে তৃণমূলে দেখা দিয়েছে নয়া মেরুকরণ। ইতমধ্যে আসাদুজ্জামান আসাদ আওয়ামী লীগের (এমপি) পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করে পবা-মোহনপুর আসনে জনসাধারণের সাথে কুশল বিনিময় থেকে শুরু করে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে গণসংযোগ করাসহ বিভিন্ন খেলা-ধূলার মাধ্যমে নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বড় রকমের ঝড় তুলেছে, আবার সেই ঝড়ে অনেকের স্বপ্ন ভগ্নের উপক্রম হয়েছে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা আসাদকে সাম্ভব্য প্রার্থী ধরে নিয়ে তাদের নির্বাচনী পরিকল্পনা-ছক তৈরী করছে।FB_IMG_1522750474034

এবার পবা-মোহনপুর আসনে আসাদকে ঘিরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে প্রতিনিয়ত নানা গুঞ্জন ডাল-পালা মেলছে। রাজনৈতিক অঙ্গনে আবারো আলোচনায় উঠে এসেছে জননন্দ্বিত ও তারকাখ্যাতি রাজনৈতিক নেতা আসাদুজ্জামান আসাদের নাম।

এছাড়াও আসাদকে দলের হাইকমান্ড থেকে সবুজ সংকেত দিয়ে নির্বাচনী প্রচার-প্রচরনা করতে মাঠে নামার পরামর্শ দেয়া হয় বলে আসাদের ঘনিষ্ঠ একাধিক সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।

অপরদিকে পবা-মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা এবার এ আসনে আসাদকে সমর্থন দিয়েছে। যার ফলে দলটির নীতিনির্ধারক পর্যায়েও আসাদকে নিয়ে নানা আলোচনা-পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ করা হচ্ছে বলেও প্রচার রয়েছে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও তৃণমূলে আসাদুজ্জামান আসাদ বেশ বড় রকমের সাড়া জাগাতে সমর্থন হয়েছে।

সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবার মনোনয়ন বাণিজ্য ঠেকাতে কেবলমাত্র তৃণমূলে জনমত জরিপে কর্মী ও জনবান্ধব নেতাকেই দলীয় মনোনয়নপত্র দেয়া হবে এর বাইরে মনোনয়নপত্র উত্তোলনের কারো কোনো সুযোগ নাই। আর এসব বিবেচনায় আসাদের অবস্থান তাঁর নেতাকর্মী ও অনুগতরা তার মনোনয়নের বিষয়ে অনেকটা আশাবাদি হয়ে উঠেছে।
আসাদের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনে ১৮০টি আসনে নিশ্চিত ভাবে বিজয়ী হবে এমন নেতাদের মনোনয়ন নিশ্চিত করে, বাঁকি আসনে নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টির জন্য নতুন মূখের প্রার্থী দিতে পারে।

আর এই ১৮০টি আসনের তালিকার মধ্যে রাজশাহীর একাধিক আসনের নাম নাই। যে কারণে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হয়ে নতুন মূখের আগমণ ঘটতে পারে বলে সাধারণের মধ্যে ব্যাপক গুঞ্জন বইছে। আওয়ামী লীগের তৃণমূল এবার মৃদু ও মিষ্টভাষি এবং জন ও কর্মীবান্ধব নেতাকে মাঠে দেখতে চাই যার কাছে সাধারণ নেতাকর্মীরা আপদে-বিপদে কোনো দ্বিধা সংশয় ছাড়া সহজেই সাক্ষাত করতে পারবে। আবার নেতাও স্বজনপ্রীতি ও আত্তীয়করণের উর্ধ্বে থেকে সুখে-দুঃখে কর্মীদের পাশে থাকবেন এমন নেতাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে বলে এলাকায় ব্যাপক প্রচার রয়েছে। আর এই প্রচারের পর পরই আওয়ামী লীগে আসাদকে ঘিরে নয়া মেরুকরণ ও হিসাব-নিকাশ শুরু হয়েছে। জন ও কর্মীবান্ধব নেতা হিসেবে সাধারণের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদের ব্যাপক জনসর্মথন রয়েছে। এদিকে আসাদের এমপি প্রার্থীর মনোনয়ন বিষয়ে তার অনুসারী ও কর্মীরা কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশা করে মাঠে কাজ করছেন। তিনি বলেন, তাকে মনোনয়ন দেয়া না হলে যিনি মনোনয়ন (নৌকা প্রতীক) পাবেন তিনি সকলকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে তার জন্য কাজ করবেন। তিনি বলেন, তারা নৌকার লোক নৌকার বাইরে অন্যকিছু ভাববার কোনো অবকাশ নাই।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.